চেতেশ্বর ও রাহানেকে বাদ দেওয়া নিয়ে নির্বাচকদেরকেই দায়ী করলেন কোহলি

একজন ছোট বাচ্চাও জানে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ হারের জন্য মিডল অর্ডারের ব্যর্থতা দায়ী। টিম ইন্ডিয়ার অধিনায়ক বিরাট কোহলি পরিস্থিতি ভাল করেই জানেন। তিনি জানেন যে দুই সিনিয়র, চেতেশ্বর পূজারা এবং অজিঙ্কা রাহানে, ধারাবাহিকভাবে নতুন বছরের ডাবল টেস্ট হার হজম করতে ব্যর্থ হয়েছেন। তাই উভয়ের ভবিষ্যৎ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। তবে চতুর কোহলি দুই সতীর্থকে কেটে ফেলার বিষয়টি জাতীয় নির্বাচকদের কাছে ঠেলে দেন।র

খেলার শেষে ভার্চুয়াল সাংবাদিক সম্মেলনে এই প্রসঙ্গ উঠলেই কোহলি বলেন, “আমাদের ব্যাট হাতে আরও কার্যকরী হতে হবে। দায়িত্ব এড়ানোর কোনও প্রশ্নই নেই। তবে দুই ক্রিকেটারকে বাদ দেওয়ার প্রসঙ্গে বলতে পারি, এখানে বসে ভবিষ্যতে কী হবে তা নিয়ে কথা বলতে রাজি নই। আমার সঙ্গে আলোচনা করেও কোনও লাভ নেই। আপনারা নির্বাচকদের সঙ্গে কথা বলতে পারেন এবং ওদের মনে কী চলছে সেটা জানতে পারেন। দল নির্বাচন আমার কাজ নয়।“

কেপটাউন টেস্টের দুই ইনিংসেই ওঁরা ফের ব্যর্থ। লতি সিরিজের ছয় ইনিংসে রাহানে মাত্র ১৩৬ রান করেছেন। সর্বোচ্চ গত টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে ৫৮ রান। গত ছয় ইনিংসে পূজারার ব্যাট থেকে এসেছে ১২৪ রান। তিনিও ওয়ান্ডারার্স টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে করেছিলেন ৫৩ রান। তবে কেপটাউনের দুই ইনিংসে একেবারেই মেলে ধরতে পারেননি পূজারা (৪৩, ৯) ও রাহানে (৯, ১)। তাই সুনীল গাভাসকর পর্যন্ত মনে করেন শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজে এই অভিজ্ঞ ব্যাটারকে দেখা যাবে না।

তবে কোহলি কিন্তু তাঁর দুই সতীর্থের পাশেই দাঁড়ালেন। তিনি যোগ করেছেন, “আগেও বলেছি, আবার বলব, পুজারা এবং রাহানেকে এত দিন সমর্থন করে এসেছি কারণ, গত কয়েক বছরে ওরা যে অবদান রেখেছে সেটা অসামান্য। কঠিন পরিস্থিতিতে দলের জন্য রান করেছে। দ্বিতীয় টেস্টেই সেটা আপনারা দেখতে পেয়েছেন। ওদের জুটি আমাদের লড়াই করার মতো অবস্থায় নিয়ে গিয়েছিল। এমন একটা স্কোর হয়েছিল যেখানে আমরা লড়াই দেওয়ার চেষ্টা করেছি। দলের সদস্য হিসেবে এই ধরনের পারফরম্যান্সই আমি পছন্দ করি। নির্বাচকদের মনে যা আছে এবং ওরা যেটা ঠিক করবেন সেটাই করবেন। এখানে বসে আমার কিছু বলার মতো ক্ষমতা নেই।“

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *